ফরিদপুরে শিক্ষার্থীকে আটকে রেখে বেধড়ক মারপিট করলেন চেয়ারম্যান

ফরিদপুরে শিক্ষার্থীকে আটকে রেখে বেধড়ক মারপিট করলেন চেয়ারম্যান
 ফরিদপুরে শিক্ষার্থীকে আটকে রেখে বেধড়ক মারপিট করলেন চেয়ারম্যান


নাজমুল হাসান নিরব, ফরিদপুর প্রতিনিধি:

 ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক শিক্ষার্থীকে বেধড়ক মারপিটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বর্তমানে ওই শিক্ষার্থী বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর ভাই মো. মসিউর শেখ বাদী হয়ে শুক্রবার(১৪ জানুয়ারী) বিকেলে বোয়ালমারী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।


অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলা রূপাপাত ইউনিয়নের রূপাপাত গ্রামের চান মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে রূপাপাত ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক কদমী গ্রামের মৃত আবু মোল্যার ছেলে রূপাপাত ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান মোল্যা সোনার পরিবারের সাথে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত বৃহস্পতিবার (১৩.০১.২২) বিকেলে চান মিয়ার ছেলে রূপাপাত বামন চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সদ্য এসএসসি পাসকৃত শিক্ষার্থী মো. মোস্তাদির শেখ (২০) ময়রার মাঠে ভলিবল খেলছিল। হঠাৎ কদমী গ্রামের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমানের ভাই মো. মোরাদ মোল্যা (৩৪), ফরহাদ মোল্যা (৩০), ধলা মোল্যার ছেলে রাকিব মোল্যা (৩৫), মৃত খায়ের মোল্যার ছেলে রুবেল মোল্যা (৩৯) রূপাপাত গ্রামের আশরাফ শেখের ছেলে আহম্মাদ শেখ (৩০) সহ অজ্ঞাত ৭/৮ জন সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক মোস্তাদিরকে খেলার মাঠ থেকে ধরে নিয়ে রূপাপাত বাজারে অবস্থিত চেয়ারম্যানের তিনতলা বিল্ডিংয়ের একটি রুমে আটকিয়ে হাতুড়ি, লোহার রড, কাঠের বাটাম ও সেভেন আপের কাচের বোতলে বালি ভরে বেধম মারপিট করে আহত করে। এই সংবাদ পেয়ে মোস্তাদিরের ভাই মসিউর শেখ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। মোস্তাদিরের শারিরীক অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।


বোয়ালমারী থানা অফিসার ইনচার্জ মো. নুরুল আলম জানান, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করে জড়িদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।






Post a Comment

Previous Post Next Post